Uncategorized

গোপন সম্পর্কে মা হওয়ার পর স্কুলছাত্রীকে বিয়ে করতে রাজি ‘ধর্ষক’

বরগুনার আমতলীতে বিয়ে ছাড়াই ফুটফুটে কন্যাসন্তান জন্ম দিয়েছেন

নবম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রী। বিয়ের প্রলোভনে তিনি ধর্ষণের শিকার হন

বলে অভিযোগ স্বজনদের। সোমবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুটির

জন্ম দেন ভুক্তভোগী ছাত্রী। তবে তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন অভিযুক্ত ৩৫ বছর বয়সী বেল্লাল শিকদার। ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর স্বজনরা জানান, এক বছর আগে একই ইউনিয়নের বেল্লালের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ওই ছাত্রীর। একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভনে তাকে ধর্ষণ করেন বেল্লাল। পরে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন ভুক্তভোগী কিশোরী। তবে

বিষয়টি পরিবার কাছে গোপন রাখেন তিনি। সোমবার সকালে প্রসব বেদনা শুরু হলে গোপনে স্কুলছাত্রীকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন তার মা। দুপুরে একটি কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তিনি। কিশোরীর মা বলেন, মেয়েটির অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি অনেক পরে জেনেছি। তখন কিছুই করার ছিল না। এখন অভিযুক্ত যুবক আমার মেয়েকে বিয়ে করবে বলে জানিয়েছেন। দুই পরিবার রাজি থাকলে সামাজিকভাবে বিয়ের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য ঝন্টু তালুকদার। আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. ফাতেমা শারমিন বলেন, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া স্কুলপড়ুয়া কিশোরী একটি কন্যান্তানের জন্ম দিয়েছে। মা ও সন্তান দুজনই সুস্থ রয়েছে। আমতলী থানার ওসি একেএম মিজানুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Related Articles

Back to top button