আলোচিত খবর

ছেঁড়া নোট পাল্টে দেওয়ার কথা বলে ব্যাংক থেকে‌ নারীর টাকা লুট

ইয়াসমিন বেগম। মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের

শহর কার্যালয়ে আসেন প্রবাসী ছেলের পাঠানো টাকা তোলার জন্য।

এ সময় ছেঁড়া টাকা পাল্টে দেওয়ার কথা বলে ব্যাংকের ভেতর থেকে ৮১ হাজার টাকা প্রতারণার মাধ্যমে লুট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ওই নারীরমুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়নের কাউয়াদি এলাকার বাসিন্দা। ভুক্তভোগী নারী জানান, আমার ছেলেকে এক বছর আগে আমাদের গ্রামের এক নারীর কাছ থেকে তিন লাখ টাকা সুদে নিয়ে সৌদি আরব পাঠাই। এক বছরে নেওয়া ওই টাকা সুদে-আসলে ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা

হয়েছে। সেই টাকা আজকে পরিশোধ করার কথা ছিল। কয়েক দিন আগে ছেলে বিদেশ থেকে তার বেতন এবং কিছু টাকা ধার নিয়ে ১ লাখ ২৩ হাজার টাকা পাঠায়। গ্রামের আত্মীয়র কাছ থেকেও কিছু টাকা ধার করি সুদের টাকা পরিশোধ করার জন্য। এসময় আমার ছেঁড়া টাকা তিনি নিয়ে আমাকে ভালো টাকা দেবেন। সেই সঙ্গে আমার টাকা গুণে দেবেন। এই বলে আমার ব্যাগে থাকা সব টাকা নিয়ে নেয়। পরে ৩৭টি এক হাজার ও ৫০টি ১০০ টাকার নোট দিয়ে সব টাকা নিয়ে ব্যাংক থেকে বেড়িয়ে যায় তারা। ব্যাংকের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, বেলা ১১টা ৭ মিনিটের দিকে ওই নারী ক্যাশ কাউন্টার থেকে টাকা তুলছেন। এ সময় প্রতারক চক্রের দুজন সদস্য তার আশপাশে ছিলেন। টাকা তুলে ইয়াসমিন বেগম চেয়ারে বসার পর পাঞ্জাবি পরা একজন ও মুখে মাস্ক পরিহিত আরেকজন শার্ট পড়া মধ্যবয়স্ক লোক তার দুই পাশে বসেন। তারা দুজন ইয়াসমিন বেগমের সঙ্গে কথা বলছিলেন। ইয়াসমিন বেগম আরও বলেন, আমার ছেলে বিদেশের মাটি থেকে কত কষ্ট করে একটু একটু করে টাকা জমিয়ে ও হাওলাত করে দেশে পাঠালো। ভেবেছিলাম আজকে ছেলের সব দেনা শোধ করে দিব। ব্যাংকের ভেতর থেকে প্রতারক চক্র আমার সব নিয়ে গেল। আমি এখন কীভাবে বাড়িতে যাব। কীভাবে ছেলের দেনা শোধ করব। এ ব্যাপারে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের মুন্সীগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক রাসেল আহমেদ কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হননি।

Related Articles

Back to top button