আলোচিত খবর

নাতিকে দাফনের জন্য দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছেন দাদি

ঢাকার সাভারে একটি কবরস্থানে নাতিকে দাফন করতে ৫ হাজার টাকা

লাগবে। এই টাকার জন্য দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছেন মৃতের দাদি ভিক্ষুক

জরিনা বেওয়া। মঙ্গলবার সকালে মৃত নাতীকে দাফন করার অনুরোধ নিয়ে দেওগাঁও কবরস্থানের কোষাধ্যক্ষের কাছে গেলে রেজুলেশনের অজুহাত দেখিয়ে এই টাকা দাবি করেন তিনি। জরিনা বেওয়া বলেন, যাদের কবরস্থানে কবর দেবো তারা ৫ হাজার টাকা চেয়েছে। কবরস্থানের সবাই মিলে বলেছে অন্য জায়গার লোক হলে ৫ হাজার টাকা লাগে, আর শরিক হলে এক টাকাও দেওয়া লাগবে না। আমি তো আর শরিক না। আমি ভিক্ষা করে খাই। এই টাকা কোথায় পাবো। আমার ছেলে অন্য মেয়েকে বিয়ে করে

নিরুদ্দেশ হয়েছে। ওর মা-ও চলে গেছে অন্য পুরুষর সঙ্গে। আমাদের কেউ খোঁজ নেয় না, তাদের খোঁজও জানি না। এখন কি করব, কোনো উপায় না পেয়ে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছি। কবরস্থানের কোষাধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর বলেন, দেওগাঁ কবরস্থানের সভাপতি ওমর আলী মাস্টার সাহেব। আমি এখানকার কেয়ারটেকার। আমাদের সামাজিক কবরস্থান দেওগাঁও মসজিদ কবরস্থান। এখানে কবর দিতে গেলে টাকা লাগে। আমরা সবাই মিলে নিয়ম করেছি। এই টাকা কবরস্থানের উন্নয়নের কাজে লাগানো হয়। যে মারা গেছে এখানে তার কবর দেওয়ার নিয়ম নেই। আমাদের রেজুলেশন আছে দেওগাঁওয়ের বাইরের কোনো লোকের কবর দেওয়া হবে না। ও যেহেতু দেওগাঁওয়ে ভাড়া থাকে সেই সুবাদে আমি বলে ব্যবস্থা করেছি। কবরস্থানের সাধারণ সম্পাদক আক্তার মাস্টার বলেন, আমার কাছে খবর এসেছিল- যে ছেলেটা মারা গেছে তার দাদি আসছিল সাহায্যের জন্য। আমি বলেছি আমাদের সদস্য হলে, আমাদের নিয়মকানুনের ভেতর হলে দেখব। আমাদের রেজুলেশন আছে। এই ব্যাপার আমি একা বলতে পারবো না। এ ব্যাপারে কবরস্থানের সভাপতি ওমর আলী মাস্টারের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। প্রসঙ্গত, সোমবার ঐ এলাকায় ১২ বছরের শিশু আরাফাত মারা যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়।

Related Articles

Back to top button